করোনায় পজেটিভ ব্যক্তি ঘুরে বেড়িয়েছেন হাট-বাজার, এলাকায় আতঙ্ক

করোনায় পজেটিভ ব্যক্তি ঘুরে বেড়িয়েছেন হাট-বাজার, এলাকায় আতঙ্ক

May 8, 2020 42 By মিরসরাই খবর

নিজস্ব প্রতিবেদক :::
মিরসরাইয়ে আরো একজনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। উপজেলার খইয়াছড়া ইউনিয়নের মধ্যম আমবাড়িয়া গ্রামের ওই রোগী চট্টগ্রাম ইপিজেড এলাকায় কাজ করেন। সে অসুস্থবোধ করলে গত রোববার (৩ মে) করোনা পরীক্ষার নমুনা দিয়ে বাড়িতে চলে আসে। বাড়িতে আসার পর সে সুস্থ হয়ে যায়।
কিন্তু শুক্রবার (৮ মে) দুপুরে তার নমুনার ফলাফল পজেটিভ আসে বলে নিশ্চিত করেন উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা:মিজানুর রহমান। রোগীর বিষয়ে নিশ্চিত হওয়ার পর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিনের নেতৃত্বে ওই রোগীর বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। এ নিয়ে মিরসরাইয়ে চার জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।
স্থানীয়রা জানায়, অসুস্থবোধ করায় ৪দিন আগে চট্টগ্রাম থেকে বাড়ীতে ফিরে আসেন ওই ব্যক্তি। এর মাঝে এলাকার দোকান পাট ও হাট বাজারেও গিয়েছেন।  শুক্রবার দুপুরে ওই ব্যক্তি মধ্যম আমবাড়িয়া জামের মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করে। শুক্রবার বিকেলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মাধ্যমে জানতে পারে তার করোনায় পজেটিভ এসেছে।
এলাকাবাসীরা জানান, যদি নমুনার ফলাফল দুই তিনদিন আগে জানা যেত তবে তিনি জুমার নামাজ কিংবা হাট বাজারে হয়তোবা  যেতেন না । তাই এলাকার মানুষের মধ্যে আতংক দেখা দিয়েছে।
ওই রোগীর বড় ভাই জানান, তিনি চট্টগ্রামের ইপিজেড এলাকায় কাজ করেন। শরীরের জ্বর ও কাশি থাকায় গত ৩ মে তার ভাই চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দিয়ে গ্রামের বাড়িতে চলে আসে। বাড়িতে আসার পর সে প্রায় সুস্থ হয়ে যায়। শুক্রবার দুপুরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে জানানো হয় তার করোনা পরীক্ষার ফল পজেটিভ এসেছে।
উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা ও স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ মিজানুর রহমান জানান, ওই রোগী জ্বর নিয়ে গত ৩ মে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে নমুনা দিয়ে চট্টগ্রাম থেকে বাড়িতে চলে আসে। কিন্তু বর্তমানে তার শরীরে করোনার কোন উপসর্গ নেই। তাই আবার তার ও তার মায়ের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হবে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন জানান, ওই রোগী বাড়ি আসার পর থেকে নিয়মিত মসজিদে নামাজ আদায় করেছে। তার উপসর্গ না থাকার সুযোগে গ্রামের দোকান ও বাজারগুলোতে ঘুরে বেড়িয়েছে। শুক্রবার দুপুরে আমরা তার নমুনা পরীক্ষার ফলাফল নিশ্চিত হয়ে বাড়ি লকডাউন করেছি। তবে উপসর্গ না থাকায় পুনরায় তার করোনা পরীক্ষা করা হবে।